বন্ধুকে হত্যার পরও ফোন করে মুক্তিপণ চান লিটন

বন্ধুকে হত্যার পরও ফোন করে মুক্তিপণ চান লিটন

ঢাকার নবাবগঞ্জের তরুণ মাজহারুল ইসলাম মাজু নিখোঁজ হওয়ার পর তার স্বজনের কাছে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। ভুক্তভোগী পেশায় ছিলেন অটোরিকশা চালক। তার পরিবারের সদস্যরা এত টাকা জোগাড় করতে পারেননি। শেষপর্যন্ত মঙ্গলবার তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে র‌্যাব-১০।

খুনি আর কেউ নন, তারই বন্ধু আবু হোসেন লিটন। গ্রেপ্তারের পর তিনি জানিয়েছেন, পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন। হত্যার পরও দু’দিন ধরে মুক্তিপণ চেয়েছেন বন্ধুর স্বজনের কাছে।

র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক ডিআইজি মাহ্‌ফুজুর রহমান সমকালকে বলেন, নবাবগঞ্জের দিঘিরপাড় এলাকায় থাকতেন ১৮ বছর বয়সী মাজহারুল ইসলাম মাজু। গত ৬ আগস্ট বিকেলে তিনি এক আত্মীয়ের বাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হন। রাতে বাসায় না ফেরায় তার খোঁজ শুরু হয়। এরমধ্যে মাজুর বড় বোন ভাইয়ের মোবাইল ফোন নম্বরে কল দিলে অপরিচিত কেউ রিসিভ করেন। সেই ব্যক্তি জানায়- মাজুকে অপহরণ করা হয়েছে। তাকে জীবিত ফিরে পেতে চাইলে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে। সেই টাকা দিতে না পারায় কথিত অপহরণকারী ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। এ ঘটনায় নবাবগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন পরিবারের সদস্যরা। একপর্যায়ে ভুক্তভোগীর বোন র‌্যাব-১০-এর কাছে অভিযোগ করেন।

র‌্যাব-১০-এর সিপিসি-২-এর কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার শাহরিয়ার ইসলাম সমকালকে বলেন, অভিযোগের সূত্র ধরে অনুসন্ধানে নেমে ৮ আগস্ট রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের পূর্ব রসুলপুরের আশরফাবাদ এলাকা থেকে লিটনকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, মাজুর কাছে এক লাখ টাকা পাওনা ছিল তার। কিন্তু কিছুতেই সেই টাকা উদ্ধার করতে পারছিলেন না। এমনকি টাকা চেয়ে গালাগালির শিকার হয়েছেন। এ কারণে তার ক্ষোভ জন্মায় এবং বন্ধুকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। সেই অনুযায়ী ঘটনার দিন তিনি মাদক সেবনের কথা বলে বন্ধুকে নবাবগঞ্জের দিঘিরপাড় এলাকায় ডেকে নেন। সেখানে তারা মদ পান করেন। এরপর প্রথমে পেছন থেকে ছুরি দিয়ে বন্ধুর গলায় পোচ দেন। এরপর মাটিতে চেপে ধরে গলা কেটে তার মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। পরে মাজুর পরিবারের সদস্যরা ফোন করলে তিনি অপহরণকারী সেজে মুক্তিপণ চান। গ্রেপ্তারের পর তার দেওয়া তথ্যে দিঘিরপাড় এলাকা থেকে মাজুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে হত্যায় ব্যবহৃত রক্তমাখা ছুরি, মৃতের ব্যবহৃত রূপার চেইন ও স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়। লিটনকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.