আরবি পড়তে গেলে শিশুটিকে ধর্ষণ করে মাদ্রাসাশিক্ষক

আরবি পড়তে গেলে শিশুটিকে ধর্ষণ করে মাদ্রাসাশিক্ষক

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায় একা পেয়ে আট বছরের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মাদ্রাসাশিক্ষক মোহাম্মদ হানিফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
আরবি পড়তে গেলে শিশুটিকে ধর্ষণ করে মাদ্রাসাশিক্ষক
ফেরদৌস লিপি

১ মিনিটে পড়ুন
সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাত ১২টার দিকে উপজেলার ভুজপুর থানার বাগানবাজার ইউনিয়নের গার্ডপাড়া এলাকাবাসী তাকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে।

মোহাম্মদ হানিফ (২৭) খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলার পাতাছড়া গ্রামের আবুল কালামের ছেলে। তিনি ফটিকছড়ির বাগানবাজার ইউনিয়নের গার্ডপাড়া জামিরুল উলুম ইসলামী মাদ্রাসার শিক্ষক।

ভুক্তভোগী শিশুটি স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী। আরবি পড়তে শিশুটি ওই মাদ্রাসায় যেত বলে জানায় পুলিশ।

এ বিষয়ে ভুজপুর থানার উপপরিদর্শক মোতাহের হোসেন বলেন, সোমবার বিকেল ৩টার দিকে শিশুটি মাদ্রাসায় হানিফ হুজুরের কাছে আরবি পড়তে যায়। এসময় মাদ্রাসায় অন্য শিক্ষার্থীরা ছিল না।

শিশুটিকে একা পেয়ে হানিফ নিজের কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটি বাড়ি ফিরে বিষয়টি অভিভাবকদের জানায়। গ্রামের লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে রাতে ওই মাদ্রাসায় গিয়ে হানিফকে আটক করে রাখে। পরে তাকে পুলিশের তদন্তকেন্দ্রে সোপর্দ করা হয়। রাত ১২টার দিকে তাকে ভুজপুর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

ভুক্তভোগী শিশুটিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। হানিফের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান এসআই মোতাহার।


Leave a Reply

Your email address will not be published.